বাংলাদেশ পোষ্ট ২৪ ডটকম: সাত দলের সমন্বিত ‘গণতন্ত্র মঞ্চ’ এ ভাসানী অনুসারী পরিষদ থাকলেও সংগঠনটির চেয়ারম্যান ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী এ মঞ্চে সাংগঠনিকভাবে প্রতিনিধিত্ব করছেন না। রাজনৈতিকভাবে সরাসরি কোনও দলের প্রতিনিধিত্ব না করায় গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের দায়িত্বরত এই বিশিষ্ট নাগরিক ৭ দলীয় রাজনৈতিক উদ্যোগের সঙ্গে যুক্ত থাকতে আগ্রহী নন। শনিবার (১৪ মে) ৭ দলের উদ্যোক্তাদের সঙ্গে কথা বলে এ তথ্য জানা গেছে।

সাত দলের উদ্যোক্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, সম্প্রতি জেএসডি, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি, নাগরিক ঐক্য, গণ অধিকার পরিষদ, ভাসানী অনুসারী পরিষদ, রাষ্ট্র সংস্কার আন্দোলন ও গণসংহতি আন্দোলনের শীর্ষ নেতারা একটি রাজনৈতিক মঞ্চ গড়ে তোলার যে প্রক্রিয়ার সূত্রপাত করেছেন, সেই প্রক্রিয়ায় ভাসানী অনুসারী পরিষদের প্রতিনিধিত্ব করছেন সংগঠনের মহাসচিব মুক্তিযোদ্ধা শেখ রফিকুল ইসলাম বাবলু এবং প্রেসিডিয়াম সদস্য মুক্তিযোদ্ধা নঈম জাহাঙ্গীর।

নেতারা জানান, জাফরুল্লাহ চৌধুরী সরাসরি কোনও রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিত্ব করতে আগ্রহী নন বলেই এই প্রক্রিয়ায় একজন সুহৃদ ও শুভানুধ্যায়ী হিসেবে থাকতে চান। সাংগঠনিক সদস্য হিসেবে থাকতে আগ্রহী নন। ফলে এই ঐক্যবদ্ধ রাজনৈতিক প্রক্রিয়ার তিনি কোনও মুখপাত্র নন। শুধু তাই নয়, রাজনীতি বিষয়ে তার বক্তব্য একান্তই তার নিজস্ব। জাফরুল্লাহ চৌধুরীর এই সিদ্ধান্তে সাত দলের শীর্ষ নেতারা একমত পোষণ করেছেন, বলেও দাবি করেন উদ্যোক্তা নেতারা।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ভাসানী অনুসারী পরিষদের মহাসচিব শেখ রফিকুল ইসলাম বাবলু বলেন, ‘সাত দলের সমন্বয়ে যে রাজনৈতিক ঐক্যমঞ্চ গড়ে তোলার প্রক্রিয়া চলছে, সেই প্রক্রিয়ায় ভাসানী অনুসারী পরিষদের পক্ষ থেকে আমিই রাজনৈতিক বিষয়টি দেখবো। ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী আমাদের অভিভাবক। তিনি সবার ওপরে, নিজেই একটি প্রতিষ্ঠান।’

৭ দলের সূত্র জানায়, রাজনৈতিকভাবে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে সরকারের কাছে জাতীয় সরকার গঠনের যে প্রস্তাব ধারাবাহিকভাবে জাফরুল্লাহ চৌধুরী দাবি করছেন, সে দাবির সঙ্গে রাজনৈতিকভাবে অনেক দলই দ্বিমত প্রকাশ করেছে। সেদিক থেকে সভা-সমাবেশে তিনি নিজের ব্যক্তিগত অবস্থান থেকে যেসব বক্তব্য দেন, তাতে করে মঞ্চের বিষয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হতে পারে— এমন আশঙ্কা রয়েছে। বিশেষত, সাত দলের রাজনৈতিক উদ্যোগটি নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ সরকার ও ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের পদত্যাগের দাবিতে ঐক্যমত্যের ভিত্তিতে হওয়ায় ভিন্ন কোনও প্রসঙ্গ যেন উদ্যোগে বিভ্রান্তি তৈরি করতে না পারে, সে কারণেই জাফরুল্লাহ চৌধুরীকে সাংগঠনিকভাবে সাত দলে না রাখার বিষয়ে ঐক্যমতে পৌঁছেছেন শীর্ষ নেতারা।

ভাসানী অনুসারী পরিষদের একটি ঘনিষ্ঠ সূত্র জানিয়েছে, রাজনৈতিকভাবে মঞ্চে যুক্ত না থাকার বিষয়ে শনিবার প্রায় দুই ঘন্টাব্যাপী উদ্যোগের অন্যতম একজন নেতার সঙ্গে জাফরুল্লাহ চৌধুরীর একান্তে আলোচনা হয়েছে। আলোচনার পর তিনি ভাসানী অনুসারী পরিষদকে জানিয়েছেন, সংগঠন সাত দলীয় মঞ্চে থাকলেও ‘চেয়ারম্যান’ হিসেবে তিনি সাংগঠনিকভাবে সেখানে যুক্ত থাকবেন না।

এ বিষয়ে ভাসানী অনুসারী পরিষদের মহাসচিব শেখ রফিকুল ইসলাম বাবলু বলেন, ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা, অন্যতম ট্রাস্টি। তিনি আমাদের শুভানুধ্যায়ী। তিনি একজন বুদ্ধিজীবী। মঞ্চের বিষয়ে রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত আমি দেবো। আজকে (শনিবার) তিনি ক্লিয়ার করেছেন। আমাকে তিনি বলেছেন, ‘রাজনৈতিক দিকটি তুমি দেখো।’

bangladeshpost24.com

Previous articleবিদেশ ভ্রমণে কঠোর নিষেধাজ্ঞা চীনের
Next articleইউক্রেইনে রুশ সেনার যুদ্ধাপরাধের বিচার শুরু