ছবি: সংগৃহীত




অনলাইন ডেস্কঃ টুইটার ও মেটার পর এবার কর্মী ছাটাইয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে গুগল। তবে গণছাটাইয়ের বদলে কাজের মান তুলনামূলক দুর্বল, এমন ১০ হাজার কর্মীকে ছাটাই করার কথা ভাবছে এই টেক জায়ান্ট। তাই সব কর্মীর কাজের ওপর কঠোর নজরদারি চালাচ্ছে গুগল। খবর ইন্ডিয়া টুডের।

মূলত চলতি বৈশ্বিক মন্দার কারণে গত কয়েক সপ্তাহেই বিশ্বের বড় তিনটি টেক কোম্পানি কয়েক হাজার কর্মী ছাটাই করেছে। মেটা, টুইটার ও অ্যামাজনের পর এবার সেই পথেই হাঁটছে গুগল। এরই মধ্যে কর্মীদের কাজের মান মূল্যায়নের নতুন একটি পন্থা অবলম্বন করছে গুগল। এরই জেরে ধারণা করা হচ্ছে, ২০২৩ সালের শুরুর দিকেই তুলনামূলক দুর্বল কাজের মান সম্পন্ন প্রায় ১০ হাজার কর্মীকে ছাটাই করতে যাচ্ছে এই টেক জায়ান্ট। এই সংখ্যা সংস্থাটির মোট কর্মীর ৬ শতাংশ।

প্রতিবেদন বলছে, কর্মীদের মূল্যায়নের জন্য নতুন রেটিং সিসটেম চালু করেছে গুগল। এর আওতায় কর্মীদের কাজের মান নির্ধারণের পাশাপাশি তাদের বোনাসের পরিমাণও নির্ধারিত হবে। সে অনুযায়ী যদি কোনো কর্মীর কাজের মান সন্তোষজনক না হয়, সেক্ষেত্রে নতুন পারফরমেন্স ম্যানেজমেন্ট সিসটেম অনুযায়ী গুগল ওই কর্মীর বোনাস স্থগিত করতে পারবে। সেই সাথে খারাপ কাজের মানের কারণে তার রেটিংও কমে যাবে। আর এর মাধ্যমেই ছাটাইয়ের তালিকাভুক্ত হবেন ওই কর্মী।

অবশ্য ছাটাইয়ের এ তথ্য আনুষ্ঠানিকভাবে নিশ্চিত করেনি গুগলের মূল সংস্থা অ্যালফাবেট। তবে কয়েক মাস আগে গুগলের প্রধান নির্বাহী সুন্দর পিচাই এ বিষয়ে ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। লস অ্যাঞ্জেলেসে আয়োজিত একটি কনফারেন্সে সুন্দর পিচাই বলেন, যখন আপনার কাছে আগের তুলনায় কম রিসোর্স থাকবে, তখন একটি কোম্পানি হিসেবে আপনি অবশ্যই প্রতিষ্ঠানের সেরা বিষয়গুলোকে প্রাধান্য দেবেন। আমাদের কর্মীদের কার্যকর উৎপাদনশীলতা নিশ্চিত করার বিষয়েও নজর দিতে হবে। আমরা কোন বিষয় বা কাদের ওপর আমাদের সময় ব্যয় করছি সেটিও যাচাই বাছাই করতে হবে।

Bangladeshpost24.com        

Previous articleএক বছরে ১০১ বিলিয়ন ডলার সম্পদ কমেছে ইলন মাস্কের
Next articleবিজিবি-বিজিপি ৮ম সীমান্ত সম্মেলন শুরু