অনলাইন ডেস্কঃ ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগে ( সিপিএল) টানা দুই ‘গোল্ডেন ডাক’ এর দেখা পেয়েছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। তবে গায়ানা অ্যামাজনের হয়ে সাকিবের খেলা এই মৌসুমে এখন পর্যন্ত দুটি ম্যাচেই জয়ের দেখা পেয়েছে দল। আজকের ম্যাচে সেন্ট লুসিয়া কিংসকে ৬ উইকেটে হারিয়েছে গায়ানা।

জাতীয় দলের সঙ্গে সংযুক্ত আরব আমিরাতে যোগ দেননি না সাকিব। খেলছেন সিপিএলে। বুধবার ও বৃহস্পতিবার টানা দুই ম্যাচে মাঠে নেমেছেন এই বাঁহাতি অলরাউন্ডার। প্রথম ম্যাচের মতো আজও কিংসের বিপক্ষে রানের খাতা খোলার আগেই ফিরে গেছেন সাকিব। তবে এর আগে বল হাতে ৪ ওভারে ৩৩ রান খরচায় নিয়েছেন প্রতিপক্ষের দুই উইকেট।

গায়ানার প্রোভিডেন্স স্টেডিয়ামে টসে জিতে আগে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয় সেন্ট লুসিয়া। প্রোটিয়া ব্যাটার ফাফ ডু প্লেসির দারুণ এক শতক হাঁকানো ইনিংসে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৫ উইকেটে ১৯৪ রানের বড় সংগ্রহ পায় সেন্ট লুসিয়া। ৫৯ বলে ৬ ছক্কা আর ১০ চারে ১০৩ রানের ইনিংসে ডু প্লেসি দেখা পান তার চতুর্থ টি-টোয়েন্টি সেঞ্চুরির। বল হাতে অ্যাডাম হোস ও ডেভিড ওয়াইজের উইকেট পান সাকিব।

বড় লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে দারুণ শুরু এনে দেন গায়ানার দুই ওপেনার রহমানুল্লাহ গুরবাজ ও চন্দ্রপাউল হেমরাজ। দুজনে মিলে ৭ ওভারে তুলেন ৮১ রান।

হেমরাজের ২৯ রান করে আউট হওয়ার পর বেশিক্ষণ দাঁড়াতে পারেননি আরেক ওপেনার আফগান ক্রিকেটার রহমানুল্লাহ। দলীয় ৮৫ রানের সময় ২৬ বলে ৭ চার ও ২ ছক্কায় ২০০ স্ট্রাইকরেটে ৫২ রানে ফেরেন আফগান উইকেটকিপার-ব্যাটার।

চারে ব্যাট করতে নেমেই প্রথম বলে বোল্ড হয়ে ফেরেন সাকিব। পরপর দুই বলে জোড়া উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে গায়ানা। তবে সেখান থেকে দলকে সামলান শাই হোপ ও অধিনায়ক শিমরন হেটমায়ার।

এ জুটিতে আসে ৪২ বলে ৬৩ রান। গায়ানা দলপতি ৩৬ রান করে আউট হলেও ম্যাচ জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন শাই হোপ। তার ইনিংসটি ছিল ৩০ বলে ৫ ছক্কা ও ২ চারে ৫৯ রানের। তাতে ৪ বল হাতে রেখেই ম্যাচ জিতে যায় গায়ানা।

সাকিব যোগ দেওয়ার আগে ৬ ম্যাচে মাত্র একটিতে জয় পেয়েছিল গায়ানা। সাকিব আসার পর দুটি ম্যাচেই জয়ের দেখা পেল তারা। ৮ ম্যাচে ৩ জয়ে ৭ পয়েন্ট নিয়ে পাঁচে আছে সাকিবের দল।

 

 

Bangladeshpost24.com

Previous articleমিয়ানমারের বিষয়ে রাশিয়া-চীনের ভাবনা কী, জানতে চায় যুক্তরাষ্ট্র
Next articleগাড়ি কেনার নামে ৩০০ জনের সঙ্গে প্রতারণা ইউপি চেয়ারম্যানের