বাংলায় সংবাদ 🔊




অনলাইন ডেস্কঃ বাংলাদেশ টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) শুভেচ্ছাদূত থাকবেন কি না, তা ভেবে দেখছে কমিশন।

মঙ্গলবার (২০শে সেপ্টেম্বর) বিকেলে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে দুদক সচিব মো. মাহবুব হোসেন এ তথ্য জানিয়েছেন।

দুদকের শুভেচ্ছাদূত সাকিবের বিরুদ্ধেই দুর্নীতিতে জড়িত থাকার অভিযোগ উঠেছে এতে প্রতিষ্ঠানটির ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হবে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে মাহবুব হোসেন বলেন, ‘অভিযোগ এলেই তো সঙ্গে সঙ্গে কোনো কিছু হয় না। একটু সময় দেন। বিষয়টি দুদক দেখছে, অপেক্ষা করুন।’

তিনি বলেন, ‘আপনারা জানেন যে সাকিব আল হাসান বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার এবং দলের অধিনায়ক। তার সঙ্গে ২০১৮ সালে ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে দুদকের যে চুক্তিটি হয়েছিল, সেটি ছিল বিনা পারিশ্রমিকে উনি দুদকের হয়ে তথ্যচিত্র তৈরিতে কাজ করবেন। তার সঙ্গে শুধু একবার ২০১৮ সালে যখন দুদকের ১০৬ কমপ্লেইন হটলাইন চালু হয়, তখন একটি তথ্যচিত্র করা হয়েছিল। পরবর্তীতে আমরা আর কোনো তথ্যচিত্র বা কোনো কার্যক্রম করিনি।’

সম্প্রতি জুয়া প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি, শেয়ারবাজারে কারসাজি, নিজের বাবার নাম জালিয়াতি করার অভিযোগ উঠেছে সাকিব আল হাসানের বিরুদ্ধে। এসব কর্মকাণ্ডকে দুর্নীতি হিসেবে দেখছেন অনেকে।

 

 

Bangladeshpost24.com

Previous articleআন্দোলন শান্তিপূর্ণভাবে করুন, নৈরাজ্য সৃষ্টি করবেন নাঃ কাদের
Next articleপ্রধানমন্ত্রীর কথা শুনে এখন ঘোড়াও হাসেঃ মির্জা ফখরুল