অনলাইন ডেস্কঃ বছর দুয়েক আগে বাবার মৃত্যুর পর অনেকটা একা হয়ে পড়েছেন মা। দুই ছেলে মাকে যথেষ্ট সময় দিতে পারছেন না। মাকে বাকি জীবন ভালো রাখতে চান তারা। তাই মায়ের সম্মতি নিয়ে তার জন্য পাত্র খুঁজছেন তারা। আর তাই মায়ের জন্য পাত্র চেয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বিজ্ঞপ্তি দেন মোহাম্মদ অপূর্ব।

ঢাকার কেরানীগঞ্জের অপূর্ব ‘জি অ্যান্ড টেক’ নামের একটি অনলাইন পেইজের মাধ্যমে ব্যবসা করেন। তার বড় ভাই মোহাম্মদ ইমরান হোসেনও ব্যবসা করেন।

গেলো শনিবার রাত পৌনে ১০টার দিকে জীবনসঙ্গী খুঁজে দেওয়ার ‘বিসিসিবি মেট্রিমনিয়াল: হেভেনলি ম্যাচ’ নামের ফেসবুক গ্রুপে মায়ের জন্য পাত্র চেয়ে বিজ্ঞপ্তি দেন অপূর্ব। অপূর্ব-ইমরানের মা ডলি আক্তারের বয়স এখন ৪২ বছর। তিনি পড়াশোনা করেছেন অষ্টম শ্রেণী পর্যন্ত।

 

বিজ্ঞপ্তিতে অপূর্ব লিখেছেন, বাবা মারা গেছেন। তাই আম্মুর জন্য পাত্র খুঁজছি। মায়ের জন্য কেমন পাত্র চান, তা-ও বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করেছেন অপূর্ব। পাত্র ঢাকার আশপাশের হলে ভালো হয়। শিক্ষাগত যোগ্যতা কম হলে সমস্যা নেই। পাত্রের পেশা চাকরি বা ব্যবসা যেকোনোটা হতে পারে। ধর্মকর্ম করার পাশাপাশি পাত্রকে সাদামাটা হতে হবে। যিনি মায়ের জীবনের বাকি চলার পথের সঙ্গী হতে পারবেন। পাত্রের বয়স ৪২ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে হলে ভালো হয়।

এ বিষয়ে অপূর্ব গণমাধ্যমকে জানান, তাদের দুই ভাইয়ের সঙ্গে মায়ের আগে থেকেই বন্ধুর মতো সম্পর্ক। বাবা মারা যাওয়ার আগে থেকেই তারা সবাই বড় ভাই ইমরানের করা বাড়িতে থাকেন। বড় ভাই বিয়ে করেছেন। তার পাঁচ বছর বয়সী এক সন্তান আছে।

তিনি বলেন, ‘বাবা মারা যাওয়ার পর মা তার অনেক কথাই আমাদের সঙ্গে শেয়ার করতে পারেন না। অনেক কথা বলতে গেলে তিনি একটু দ্বিধায় পড়ে যান। আমরা বড় হয়েছি। আমাদের ব্যস্ততা আছে। এ কারণে আমরা মাকে যথেষ্ট সময় দিতে পারি না। ভবিষ্যতে মা আরও একা হয়ে যাবেন। তাই আমরা সবাই চাচ্ছি, মায়ের একটা সুন্দর জীবন হোক। তার একজন ভালো জীবনসঙ্গী দরকার।’

এ বিষয়ে তিনি তার মায়ের সঙ্গে কথা বললে সম্মতি দেন তিনি। বড় ভাইও সম্মতি দেন। মা ও বড় ভাইয়ের অনুমতি নিয়েই তিনি গত শনিবার রাতে ফেসবুক গ্রুপে বিজ্ঞপ্তিটি দেন।

 

Bangladeshpost24.com

Previous articleচট্টগ্রামের শিকলবাহা থেকে তিন কোটি ৩৫ লাখ টাকার অফিমসহ গ্রেপ্তার এক
Next articleসরকার পুলিশ দিয়ে গুলি চালিয়ে বিএনপির আন্দোলন দমাতে চায়: ফখরুল