অনলাইন ডেস্কঃ রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ইউক্রেনের চার অঞ্চলকে নিজেদের অংশ হিসেবে আনুষ্ঠানিকভাবে যুক্ত করার পর দেশটির ওপর আরও নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। আজ শুক্রবার এই নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়।

বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের অর্থ দপ্তর জানিয়েছে, ইউক্রেন যুদ্ধে জড়িত রাশিয়ার সমরাস্ত্র নির্মাণশিল্প মিলিটারি ইন্ডাস্ট্রিয়াল কমপ্লেক্স ছাড়াও দেশটির বড় দুটি আন্তর্জাতিক অস্ত্র সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান, রাশিয়ার আর্থিক খাতের তিন নেতা, রাশিয়ার কিছু জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তার পরিবারের সদস্য এবং রাশিয়ার আইনসভার ২৭৮ জন সদস্য এই নিষেধাজ্ঞার আওতায় রয়েছেন।

মার্কিন অর্থমন্ত্রী জ্যানেট ইয়েলেন বলেন, ‘পুতিন প্রতারণা করে ইউক্রেনের কিছু অংশ নিজ দেশের সঙ্গে সংযুক্ত করার চেষ্টা করায় আমরা তাঁর পাশে নেই। মার্কিন অর্থ দপ্তর এবং মার্কিন সরকার রাশিয়ার ইতিমধ্যে দুর্বল হয়ে পড়া সমরাস্ত্র কমপ্লেক্সকে আরও দুর্বল করতে এবং দেশটির অবৈধ যুদ্ধ চালানোর ক্ষমতাকে দুর্বল করতে ব্যাপক পদক্ষেপ নিচ্ছে।’

ইয়েলেন বলেন, যুক্তরাষ্ট্র ও এর মিত্রদেশগুলো রাশিয়ার ভেতর–বাইরে ‘যারা এই যুদ্ধ এবং এই জালিয়াতি গণভোটে জড়িত’ তাঁদের বিরুদ্ধে ‘কঠোর পদক্ষেপ’ নিতে দ্বিধা করবে না।

ইউক্রেনে নিজেদের নিয়ন্ত্রিত চার অঞ্চলকে রুশ ফেডারেশনে যুক্ত করে চুক্তিতে সই করেছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। আজ শুক্রবার ক্রেমলিনে ওই চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

রাশিয়ার মূল ভূখণ্ডে যুক্ত করা ইউক্রেনের চার অঞ্চল হলো খেরসন, জাপোরিঝঝিয়া, দোনেৎস্ক ও লুহানস্ক। রাশিয়ার সঙ্গে যুক্ত করতে এ অঞ্চলগুলোতে গণভোটের আয়োজন করেছিল মস্কো। গত শুক্রবার থেকে মঙ্গলবার পর্যন্ত চলে ওই ভোট।

 

Bangladeshpost24.com

Previous articleআসকের প্রতিবেদনে রাজনৈতিক সহিংসতায় মৃত্যু ৫৮, ইউপি ভোটে ৪৪ জনের
Next articleর‌্যাব সংস্কারের কোনো প্রশ্নই দেখি নাঃ এম খুরশীদ হোসেন