অনলাইন ডেস্কঃ চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে খৈয়াছড়া ঝর্ণা ক্রসিংয়ে ট্রেনের সাথে মাইক্রোবাসের সংঘর্ষে মারা গেছেন এগারজন। এ ঘটনায় ক্রসিংয়ে দায়িত্বরত গেটম্যানকে আটক করেছে পুলিশ। বার তাকিয়া স্টেশনে ঢোকার মুখে খৈয়াছড়া ঝর্ণা ক্রসিংয়ে ট্রেনের সাথে মাইক্রোবাসটির সংঘর্ষ হয়।

শুক্রবার বিকালে গেটম্যানকে আটকের বিষয় নিশ্চিত করেছেন চট্টগ্রাম রেলওয়ে থানার ওসি মো. নাজিম উদ্দিন।  গেটম্যানকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

দূর্ঘটনার সময় লেভেল ক্রসিংয়ে গেটম্যানের উপস্থিত থাকার বিষয় এবং গেট ফেলা ছিলো কিনা তা এখনও স্পষ্ট হওয়া যায় নি।

পুলিশ জানিয়েছে মাইক্রোবাসে ১৪ জন যাত্রী ছিলেন। তাদের একজন অক্ষত আছেন। আহত হয়েছেন দুইজন। চালকসহ বাকি যাত্রীরা মারা গেছেন। দূর্ঘটনার কারণে বিকেল পৌনে পাঁচটা পর্যন্ত চট্টগ্রামগামী কয়েকটি ট্রেন বিভিন্ন স্টেশনে আটকে পরে।

পূর্ব রেলের বিভাগীয় পরিবহন কর্মকর্তা আনসার আলী জানিয়েছেন-ঢাকা থেকে চট্টগ্রামগামী মহানগর প্রভাতী ট্রেনটি লেভেল ক্রসিং পার হওয়ার মুখে খৈয়াছড়াগামী একটি পর্যটকবাহী মাইক্রোবাস লাইনে উঠে পড়ে।

এরপর ট্রেনটি প্রায় এক কিলোমিটার দূরে বার তাকিয়া স্টেশনের দিকে মাইক্রোবাসটিকে ঠেলে নিয়ে যায়।

দূর্ঘটনাকবলিত মাইক্রোবাসটি নিয়ে চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলার আমানবাজার থেকে খৈয়াছড়া ঝর্ণা দেখতে এসেছিলেন যাত্রীরা। তাদের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি

স্থানীয়রা জানান এক ব্যক্তি আইডি কার্ড দেখে চালকের পরিচয় নিশ্চিত করেছেন। তার নাম মোস্তফা কামাল। তিনি হাটহাজারী উপজেলার চিকনদণ্ডী এলাকার বাসিন্দা।

বিকেল পৌনে পাঁচটার দিকে দূর্ঘটনা কবলিত মাইক্রোবাস সরিয়ে মহানগর প্রভাতী ট্রেনটি আবার চট্টগ্রামের উদ্দেশে ছেড়ে গেছে।

এঘটনায় রেলের ডিটিও আনসার আলীকে প্রধান করে পাঁচ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত কমিটি দ্রুততম সময়ে তদন্ত শেষ করে প্রতিবেদন জমা দেবে।

 

Bangladeshpost24.com

Previous articleহিরো আলম এবার ফাঁসির আসামী!
Next articleটেকনাফে ১.০৬৩ কেজি মারণ নেশা ক্রিস্টাল মেথ আইস ও ইয়াবাসহ দুই মাদক কারবারি আটক