অনলাইন ডেস্ক: ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ছাত্রদল নেতা নয়ন হত্যার অভিযোগে এসপিসহ (পুলিশ সুপার) আট পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে মামলার আবেদন করা হয়েছে।

বুধবার ব্রাহ্মণবাড়িয়া সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে নয়নের বাবা রহমত উল্লাহ এ মামলার আবেদন করেন। মামলার বাদী পক্ষের আইনজীবী আরিফুল হক মাসুদ জাগো নিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, মামলার আবেদন জমা দেওয়া হয়েছে। আদালত এ বিষয়ে পরবর্তীতে আদেশ দেবেন। মামলার আবেদনে প্রধান আসামি করা হয়েছে বাঞ্ছারামপুর মডেল থানার পুলিশ কনস্টেবল বিশ্বজিৎ বিশ্বাসকে। এছাড়া অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোজাম্মেল হোসেন রেজা ও পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নূরে আলম, পরিদর্শক (তদন্ত) তরুণ দে, উপ-পরিদর্শক (এসআই) আফজাল হোসেন খান, এসআই বিকিরণ চাকমা, কনস্টেবল শফিকুলকেও আসামি করা হয়েছে।

বিএনপির কুমিল্লা বিভাগীয় মহাসমাবেশ উপলক্ষে শনিবার বিকেলে বাঞ্ছারামপুর উপজেলায় লিফলেট বিতরণকালে বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়। এ সময় উপজেলার সোনারামপুর ইউনিয়ন ছাত্রদলের সহ-সভাপতি মো. নয়ন মিয়া গুলিবিদ্ধ হন।
উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নেওয়ার পথে তিনি মারা যান। এ ঘটনায় গুরুতর আহত হন বাঞ্ছারামপুর পৌর যুবদলের আহ্বায়ক ইমান আলী। পাশাপাশি ছয় পুলিশ সদস্য আহত হওয়ার দাবি করা হয়।

এদিকে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনায় বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের শতাধিক নেতাকর্মীকে আসামি করে মামলা হয়েছে৷ পুলিশের ওপর হামলা ও অস্ত্র ছিনিয়ে নেওয়ার অভিযোগে এই মামলা করা হয়।

বুধবার সকালে নয়নের বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছেন বিএনপির প্রতিনিধি দল। প্রতিনিধি দলে রয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, সংসদ সদস্য ও বিএনপির সহ-আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক রুমিন ফারহানা, কৃষক দলের যুগ্ম সম্পাদক কৃষিবিদ মেহেদী হাসান পলাশ, ছাত্রদলের সভাপতি কাজী রওনাকুল ইসলাম শ্রাবণ, সাধারণ সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েলসহ নেতারা।

 

Bangladeshpos24.com 

Previous articleবিমানবন্দর সড়কে চলাচলে বিশেষ নির্দেশনা
Next article১০ই ডিসেম্বর প্রতিটি ওয়ার্ডে সতর্ক পাহারায় থাকবে আওয়ামী লীগ