অনলাইনর ডেস্কঃ রাজধানীর পল্লবীর সমাবেশ শুরু হওয়ার আগেই নেতা-কর্মীদের ওপর হামলা এবং বনানীতে মোমবাতি প্রজ্বালন কর্মসূচির শেষ পর্যায়ে হামলার ঘটনার পর আজ সোমবার দলের পূর্বঘোষণা অনুযায়ী মহাখালীতে সমাবেশ করছে ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপি। বেলা ৩টায় ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির গুলশান জোনের উদ্যোগে এ সমাবেশ শুরু হয়। মহাখালীতে গাউসুল আজম জামে মসজিদসংলগ্ন ময়দান মাঠের এ সমাবেশে বনানীতে হামলায় আহত তাবিথ আউয়াল হাতে ও মাথায় ব্যান্ডেজ নিয়ে অংশ নিয়েছেন।

তাবিথ আউয়াল তার বক্তব্যে বলেন, ‘আমরা সবাই প্রস্তুত আছি। আমি যুদ্ধের মাঠে আপনাদের সঙ্গে আছি। এ কথা আপনাদের বলতেই আজ এখানে এসেছি। আহত করে আমাদের দমিয়ে রাখা যাবে না।’

তিনি আরও বলেন, ‘এখন আর কারও কাছে বিচার চাইব না, বিচার চেয়ে লাভ নেই। বিচার করবে দেশের জনগণ। আমাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান বলেছেন, বাংলাদেশ যাবে কোন পথে, ফয়সালা হবে রাজপথে। আমরা রাজপথে ফয়সালা করে ঘরে ফিরব।’

বিএনপির উত্তরের আহ্বায়ক আমানউল্লাহ আমানের সভাপতিত্বে এবং সদস্য সচিব আমিনুল হকের পরিচালনায় মঞ্চে আছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, বিএনপি নেতা আবদুস সালাম, শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস, কামরুজ্জামান রতন, সরাফত আলী সপু, মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল, সুলতানা আহমেদ, সাইফ মাহমুদ জুয়েল প্রমুখ। সমাবেশে বিভিন্ন পর্যায়ের বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী অংশ নিয়েছেন।

জ্বালানি তেলের নজিরবিহীন মূল্যবৃদ্ধি, লোডশেডিং, গণপরিবহনে ভাড়া বৃদ্ধি, নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের মূল্যবৃদ্ধি, পুলিশের গুলিতে ভোলায় নুরে আলম, আবদুর রহিম ও নারায়ণগঞ্জে শাওন নিহত হওয়ার প্রতিবাদে গত ১০ সেপ্টেম্বর থেকে ধারাবাহিক সমাবেশ করছে বিএনপি। এর মধ্যে পল্লবীতে হামলায় সমাবেশ পণ্ড হয়েছে। বনানীতে মোমবাতি প্রজ্বালন কর্মসূচির শেষ পর্যায়ে হামলায় তাবিথ আউয়ালসহ বিএনপির সিনিয়র নেতারাও আহত হয়েছেন।

 

 

Bangladeshpost24.com

Previous articleরাবিপ্রবির প্রথম নারী ভিসি হলেন ড. সেলিনা আখতার
Next articleতাইওয়ানে হামলা হলে মার্কিন সেনারা রক্ষা করবে : বাইডেন