অনলাইন ডেস্কঃ শতাব্দীর সবচেয়ে ভয়াবহ বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত পাকিস্তানিরা মানবিক সংকটে ভুগছে। এসব অঞ্চলে লাখ লাখ মানুষের জীবন রক্ষাকারী সহায়তার তীব্র প্রয়োজন। জাতিসংঘের এক রিপোর্টে এমন তথ্য জানানো হয়েছে।

বিপর্যয়কর বন্যা পাকিস্তানকে বিধ্বস্ত করার প্রায় এক মাস পর দেশটির বড় একটি অংশ (বিশেষ করে সিন্ধু প্রদেশের দক্ষিণাঞ্চল) এখনো পানির নিচে ডুবে আছে। খবর ভয়েস অব আমেরিকার

কর্মকর্তারা সতর্ক করে বলেছেন, সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাগুলিতে বন্যার পানি কমতে ছয় মাস পর্যন্ত সময় লাগতে পারে।

মানবিক সংস্থাগুলো বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত ৩ কোটি ৩০ লাখ মানুষের মধ্যে অনেককে জরুরি সহায়তা দেওয়ার জন্য ছুটে বেড়াচ্ছে। কিন্তু অসংখ্য রাস্তা ও সেতু বন্যার পানিতে ভেসে যাওয়ায় বা ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় অনেক এলাকায় প্রবেশ করা সম্ভব হচ্ছে না।

গেরিদা বিরুকিলা পাকিস্তানের বেলুচিস্তানে ইউনিসেফের প্রধান ফিল্ড অফিসার। প্রাদেশিক রাজধানী কোয়েটা থেকে তিনি বলেন, স্থবির পানিতে বন্দী হাজার হাজার পরিবার। তারা খাদ্য, বিশুদ্ধ পানি, ওষুধ এবং অন্যান্য ত্রাণের জন্য মরিয়া হয়ে আছে। তাদের কাছে এসবের কিছুই পৌঁছানো সম্ভব নয়।

জাতিসংঘ জানিয়েছে, বন্যায় ৫৫০ জনেরও বেশি শিশুসহ দেড় হাজারের বেশি মানুষ মারা গেছে। ৭৬ লাখ লোককে বাড়িঘর থেকে অন্যত্র সরিয়ে নেয়া হয়েছে, তাদের মধ্যে ৩৪ লাখেরও বেশি শিশু রয়েছে।

বিরুকিলা বলছেন, বন্যার আগে পাকিস্তানে অপুষ্টি একটি বড় সমস্যা ছিল। বন্যার পর সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ শিশুদের অনেকেরই সঠিক চিকিৎসা অভাবে মারা যাওয়ার ঝুঁকি বেশি।

ইউনিসেফ শুরু থেকেই সরকারের ত্রাণ তৎপরতায় সহায়তা করে আসছে। বিরুকিলা বলেছে, বন্যার পরপরই, সংস্থাটি সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত জেলাগুলিতে পানীয় জল এবং অন্যান্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী সরবরাহ করেছে। তিনি বলেন, এজেন্সি ৭১টি মোবাইল স্বাস্থ্য শিবির এবং অস্থায়ী শিক্ষা কেন্দ্র স্থাপন করেছে, যাতে শিশুদের মানসিক আঘাত মোকাবেলায় সহায়তা করা যায়।

তিনি বলেন, আরও অনেক কিছু করা বাকি আছে কিন্তু মানবিক কার্যক্রমের জন্য ইউনিসেফের অর্থের অভাব হচ্ছে। তিনি বলেন, ইউনিসেফের ৯০ লাখ ডলারের আবেদনের এক তৃতীয়াংশেরও কম পূরণ করা সম্ভব হয়েছে। আন্তর্জাতিক দাতাদের এই জীবন রক্ষার প্রচেষ্টাকে সমর্থন করার জন্য অনুরোধ জানান তিনি।

 

 

Bangladeshpost24.com

Previous articleরাশিয়ার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে আরও ক্ষমতা পাচ্ছে হোয়াইট হাউজ
Next articleচালের বাজারে সক্রিয় মিল মালিকদের বড় সিন্ডিকেট