অনলাইন ডেস্কঃ পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলায় ভয়াবহ নৌকাডুবি ঘটনার পঞ্চম দিনেও চলছে উদ্ধার অভিযান। নিখোঁজ রয়েছে এক শিশুসহ ৩ জন।

বৃহস্পতিবার (২৯শে সেপ্টেম্বর) সকাল ৬টা শুরু হয়েছে উদ্ধার অভিযান। এখন পর্যন্ত কোনো মরদেহ পাওয়া যায়নি।

নিখোঁজ তিনজন হলেন—দেবীগঞ্জ উপজেলার শালডাঙ্গা ইউনিয়নের ছত্রশিকারপুর হাতিডুবা গ্রামের মদন চন্দ্রের ছেলে ভুপেন ওরফে পানিয়া,বোদা উপজেলার সাকোয়া ইউনিয়নের ডাঙ্গাপাড়া গ্রামের খগেন্দ্রনাথের ছেলে সুরেন ও পঞ্চগড় সদর উপজেলার ঘাটিয়ারপাড়া গ্রামের ধীরেন্দ্রনাথের মেয়ে জয়া রানি।

অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট দীপঙ্কর কুমার রায় জানান, পঞ্চম দিনেও উদ্ধার অভিযান চলছে। মর্মান্তিক বয়াবহ নৌকাডুবির ঘটনায় গতকাল বুধবার আরও একজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত মরদেহ উদ্ধারের সংখ্যা ৬৯। আমাদের কাছে তথ্য অনুযায়ী এখনও তিনজন নিখোঁজ রয়েছেন। সবাইকে উদ্ধার না করা পর্যন্ত আমাদের উদ্ধার অভিযান অব্যাহত থাকবে।

গত রবিববার (২৫শে সেপ্টেম্বর) দুপুরে আউলিয়া ঘাট এলাকায় করতোয়া নদীতে নৌকাডুবির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার দিন ২৫ জন, দ্বিতীয় দিন ২৬ জন, তৃতীয় দিন ১৭ জন ও চতুর্থ দিনে একজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

এর মধ্যে রয়েছে পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলার ৪৬ জন, দেবীগঞ্জ উপজেলায় ১৭, আটোয়ারী উপজেলার দুই,পঞ্চগড় সদর উপজেলার এক ও ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার তিনজন। মৃতদের মধ্যে পুরুষ ১৮ জন, নারী ৩০ এবং ২১ শিশু রয়েছে।

এর আগে গত রবিবার করতোয়া নদীর অপরপাড়ে বদেশ্বরী মন্দিরে মহালয়া পূজা উপলক্ষে আয়োজিত ধর্মসভায় যোগ দিতে সনাতন ধর্মালম্বীরা নৌকা যোগে নদী পার হচ্ছিলেন। তবে ৫০ থেকে ৬০ জনের ধারণ ক্ষমতার নৌকাটিতে ওঠেন শতাধিক যাত্রী। অতিরিক্ত যাত্রীর চাপে নদীর মাঝে গিয়ে নৌকাটি ডুবে যায়। কয়েকজন সাঁতরে তীরে আসতে পারলেও অধিকাংশই পানিতে ডুবে যান।

 

Bangladeshpost24.com

Previous articleশিগগিরই দেশের বাজারে আসছে সাকিবের এক্সক্লুসিভ এস-৭৫ রঙ সম্বলিত অপো এফ২১এস প্রো
Next articleভারতের নতুন প্রতিরক্ষা প্রধান অনিল চৌহান