ঋষি সুনাক




অনলাইন ডেস্কঃ যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর ১০ নং ডাউনিং স্ট্রিটের বাগানে বসানো হয়েছে একটি নারীর ভাস্কর্য। এটি কিনতে দেশটির সরকার খরচ করেছে ১৫ লাখ ব্রিটিশ পাউন্ড। যা বাংলাদেশি অর্থে প্রায় ১৯ কোটি টাকার সমান। আর এত অর্থ খরচ করে ভাস্কর্য কেনায় এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সাধারণ মানুষ। বর্তমানে প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্বে থাকা ঋষি সুনাক এ বাগানটি নতুন করে সাজাচ্ছেন। এর অংশ হিসেবে এখানে বসেছে নতুন ভাস্কর্য।

বিখ্যাত ভাস্কর হেনরি মুর ১৯৮০ সালে ‘ওয়ার্কিং মডেল ফর সিটেড ওমেন’ নামের ব্রোঞ্জের ভাস্কর্যটি তৈরি করেছিলেন। এটি গত মাসে নিলামে তোলা হয়েছিল। সেই নিলাম থেকে ভাস্কর্যটি কিনে নেয় যুক্তরাজ্যের সরকারি আর্ট কালেকশন বিভাগ। এজন্য তারা খরচ করে ১৫ লাখ পাউন্ড।

যুক্তরাজ্যে যখন মুদ্রাস্ফীতি বেড়েছে, সাধারণ মানুষকে আগের তুলনায় প্রায় দ্বিগুণ বিল গুণতে হচ্ছে এবং তাদের নিজেদের খরচ কমাতে হয়েছে তখন প্রধানমন্ত্রীর বাগানের জন্য ১৯ কোটি টাকা দিয়ে ভাস্কর্য কেনার বিষয়টি সাধারণভাবে নেননি সাধারণ মানুষ।

দ্য সানকে একজন ভাস্কর বিশেষজ্ঞ বলেছেন, ‘মুরের খুবই সুন্দর এবং গুরুত্বপূর্ণ একটি শিল্পকর্ম এ ভাস্কর্যটি। কিন্তু তবুও বর্তমান অর্থনৈতিক পরিস্থিতি বিবেচনা করলে এটিকে অযথা ব্যয় হিসেবেই ধরা হবে।’

সমালোচনা ছড়িয়ে পড়ার পর প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর এ নিয়ে মুখ খুলেছে। তারা বলেছে, ‘ভাস্কর্য কেনায় কোনো রাজনীতিক জড়িত ছিলেন না।’ বৃহস্পতিবার ১০ নং ডাউনিং স্ট্রিটের বাগানে এটি বসানো হয়। যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে গত ৪০ বছর ধরে মুরের ভাস্কর্য রয়েছে। যেগুলো মাঝে মাঝে পরিবর্তন করা হয়।

এদিকে যুক্তরাজ্যের আর্ট কালেকশন বিভাগের মালিকানায় রয়েছে প্রায় ১৪ হাজার মূল্যবান শিল্পকর্ম। যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন সরকারি দপ্তর এবং বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে তাদের এসব শিল্পকর্ম রাখা আছে।

হেনরি মুরকে ২০ শতকের অন্যতম সেরা ভাস্কর হিসেবে ধরা হয়। ১৯৮৬ সালে মারা যাওয়ার আগ পর্যন্ত ব্রোঞ্জ দিয়ে বেশ কয়েকটি বিশ্ব বিখ্যাত ভাস্কর্য তৈরি করেছিলেন তিনি।

Bangladeshpost24.com

Previous articleপ্রভাসকে বিয়ে করার আভাস কৃতির
Next articleপ্রধানমন্ত্রী ভাতা নেবেন না আনোয়ার ইব্রাহিম