প্রিয়াঙ্কার চোপড়া ছবি: সংগৃহীত




অনলাইন ডেস্কঃ পুলিশি হেফাজতে কুর্দি তরুণী মাহশা আমিনীর মৃত্যুর ঘটনা নিয়ে নারীদের প্রতিবাদ তীব্র হচ্ছে। শুরু থেকেই আন্দোলনের সমর্থনে বার্তা দিচ্ছেন অনেকেই। এবার সেই তালিকায় যুক্ত হলেন প্রিয়াঙ্কার চোপড়া।

বৃহস্পতিবার (৬ই অক্টোবর) রাতে প্রিয়াঙ্কা চোপড়া তার ইনস্টাগ্রামে ইরানী আন্দোলনকারীদের সাহসের প্রশংসা করেছেন। তিনি লিখেছেন, ‘যুগ যুগ ধরে জোর করে নিশ্চুপ রাখার পর যে কণ্ঠ জেগে ওঠে, তা ঠিক আগ্নেয়গিরির মতো বিস্ফোরিত হয়। তারা থামবে না। তাদের থামানো যাবে না। আমি আপনাদের সাহস দেখে, উদ্দেশ্য জেনে বিস্মিত।’

তিনি লেখেন, ‘আক্ষরিক অর্থেই পিতৃতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানকে চ্যালেঞ্জ করা, নিজেদের অধিকারের জন্য লড়াই করতে জীবনের ঝুঁকি নেওয়া সহজ নয়। তবে আপনারা সাহসী নারীরা প্রতিদিন এই কাজ করে যাচ্ছেন।’

প্রিয়াঙ্কার চোপড়া

দিনকে দিন আন্দোলন দেশ ছেড়ে ছড়িয়ে পড়ছে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে। অনেকে প্রকাশ্যে মাথার চুল কেটে, অনেকে আবার হিজাব খুলে প্রতিবাদ জানাচ্ছে। বিশেষ করে ইউরোপ-আমেরিকায় এ নিয়ে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছে। রাস্তায় নামছে সেখানকার লোকজনও।

প্রিয়াঙ্কার চোপড়া ইরানি ক্ষমতাসীনদের প্রতি বিক্ষোভকারীদের কথা শোনার আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি লিখেছেন, ‘যথাযথভাবে হিজাব না পরার অভিযোগে ইরানের নীতি পুলিশ নৃশংসভাবে মাসা আমিনির জীবন কেড়ে নিয়েছে। তার মৃত্যুর প্রতিবাদে ইরানসহ সারা বিশ্বের নারীরা জেগে উঠছেন। তারা আওয়াজ তুলছেন। প্রকাশ্যে নিজেদের চুল কেটে ফেলছেন। তারা আরও নানাভাবে প্রতিবাদ করছেন।’

প্রিয়াঙ্কার চোপড়া

ভুল প্রথায়’ হিজাব পরার অভিযোগে ইরানের নীতি পুলিশ গত ১৩ সেপ্টেম্বর মাহশা আমিনীকে গ্রেপ্তার করে। ১৬ সেপ্টেম্বর পুলিশি হেফাজতে তার মৃত্যু হয়। অভিযোগ ওঠে তাকে মারধর করা হয়েছিল। এরপর ঝড় ওঠে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। তবে দেশটির পুলিশ মারধরে মাহশা আমিনীর মৃত্যু দাবি অস্বীকার করে। পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়, অন্য বন্দিদের সঙ্গে আটক থাকার সময়ে মাহশা অসুস্থ হয়ে পড়েছিল।

Bangladeshpost24.com

Previous articleশিগগিরই শুরু হবে বৈশ্বিক মন্দা: আইএমএফ
Next articleজিয়ার উদ্দেশ্য ছিল বাংলাদেশকে পাকিস্তান বানানোঃ মোস্তাফা জব্বার