বাংলাদেশ পোষ্ট ২৪ ডটকম: থাইল্যান্ডের ব্যাংককে জাতিসংঘের এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অর্থনৈতিক ও সামাজিক কমিশনের (ইউএন-এসকাপ) চারটি আঞ্চলিক প্রতিষ্ঠানের পরিচালনা পরিষদ নির্বাচনে ২০২২-২৫ মেয়াদে বাংলাদেশ নির্বাচিত হয়েছে।

এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় বলে অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের (ইআরডি) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়, ইউএন-এসকাপের ৭৮তম সম্মেলনের শেষ দিনে যথাক্রমে জাপানের মাকুহারিতে অবস্থিত স্ট্যাটিস্টিক্যাল ইনস্টিটিউট ফর এশিয়া অ্যান্ড দ্য প্যাসিফিক (এসআইএপি), দক্ষিণ কোরিয়ার ইঞ্চিয়ন সিটিতে অবস্থিত এশিয়ান অ্যান্ড প্যাসিফিক ট্রেনিং সেন্টার ফর ইনফরমেশন অ্যান্ড কমিউনিকেশন টেকনোলজি ফর ডেভেলপমেন্ট (এপিসিআইসিটি), চীনের বেইজিংয়ে অবস্থিত সাসটেইনেবল এগ্রিকালচারাল মেকানিজেশন (সিএসএএম) ও ইরানের তেহরানে অবস্থিত এশিয়ান অ্যান্ড প্যাসিফিক সেন্টার ফর দ্য ডেভেলপমেন্ট অফ ডিজাস্টার ইনফরমেশন ম্যানেজমেন্টের (এপিডিআইএম) গভর্নিং কাউন্সিলের নির্বাচনে বাংলাদেশ নির্বাচিত হয়।

ভারত ছাড়া বাংলাদেশই একমাত্র দেশ যে ইউএন-এসকাপের চারটি আঞ্চলিক প্রতিষ্ঠানের পরিচালনা পরিষদেই নির্বাচিত হয়।

ইউএন-এসকাপের ৭৮তম সভা শুরু হয় ২৩ মে। পাঁচ দিনের এ সম্মেলন বৃহস্পতিবার শেষ হয়। শেষ দিনে অনুষ্ঠিত নির্বাচন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভার্চুয়ালি বক্তব্য রাখেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রী এম এ মোমেন একটি বিশেষ অধিবেশনে বক্তব্য দেন।

সম্মেলনে ১০ সদস্যের বাংলাদেশ প্রতিনিধদলের নেতৃত্ব দেন ইআরডি সচিব ফাতিমা ইয়াছমিন।

থাইল্যান্ডের ইউনাইটেড নেশনস কনফারেন্স সেন্টারে অনুষ্ঠিত এ নির্বাচনে চীনের বেইজিংয়ে অবস্থিত ইউএন কম্পাউড ও ফিজির সুভাতে এসকাপের উপ-আঞ্চলিক অফিস থেকেও ভোট দেয়ার ব্যবস্থা ছিল।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, জাতিসংঘের এই বৃহত্তম সংস্থায় এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় নেতৃত্ব বাংলাদেশের নেতৃত্বকে যে কতটা মূল্যায়ন করে, এই জয় তার এক উজ্জ্বল প্রমাণ। এই বিজয় বাংলাদেশের অগ্রযাত্রার ‘উন্নয়ন মডেল’ এর প্রতি অন্যান্য সদস্য রাষ্ট্রের আস্থার প্রতিফলন।

প্রতিষ্ঠানগুলোর পরিচালনা পরিষদে সদস্যপদ লাভের মাধ্যমে বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠান চারটির কর্মসূচি এবং অর্থ ও অন্যান্য প্রশাসনিক বিষয়ে পরামর্শ দেয়ার সুযোগ সৃষ্টি হবে এবং আইসিটি, কৃষি, পরিসংখ্যান, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি এবং দুর্যোগ ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রে সক্ষমতা বৃদ্ধি, প্রযুক্তি বিনিময়, দক্ষতা উন্নয়নে বাংলাদেশের অংশগ্রহণ গুরুত্ব পাবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়।

ইউএন-এসকাপের পাঁচটি আঞ্চলিক প্রতিষ্ঠান রয়েছে। প্রতিটি আঞ্চলিক ইনস্টিটিউটের একটি গভর্নিং কাউন্সিল থাকে এবং তারা প্রতিষ্ঠানের প্রশাসন ও আর্থিক অবস্থা পর্যালোচনা করার পাশাপাশি কর্মসূচি প্রণয়ন ও বাস্তবায়নে ইনস্টিটিউট পরিচালকদের প্রয়োজনীয় পরামর্শ দিয়ে থাকে।

bangladeshpost24.com

Previous article২০ বছর পর কারামুক্ত জাপানিজ রেড আর্মির সহপ্রতিষ্ঠাতা
Next articleআইডিআরএ চেয়ারম্যানের ‘দুর্নীতির প্রমাণ’ আদালতে জমা