অভিনেত্রী রশ্মিকা মান্দনা

অনলাইন ডেস্কঃ সাফল্য পেয়ে নিজের অতীত ভুলে গেছেন, বলিউডে গিয়ে নিজের শিকড়কে ছোট করছেন— এমনই হাজারও অভিযোগ দক্ষিণ ভারতের জনপ্রিয় অভিনেত্রী রাশমিকা মান্দানার বিরুদ্ধে। অবিরাম চলতে থাকা সমালোচনায় বেশ বিমর্ষ এই নায়িকা। মাঝখানে নিজেকে শোধরাবেন, কথা বলার ক্ষেত্রে আরও সংযত হবেন বলে জানিয়েছিলেন। এবার সরাসরি জানতে চান সমস্যাটা আসলে কোথায়?

‘গুডবাই’-এর পর বলিউডে রাশমিকার আরও এক ছবি ‘মিশন মজনু’ মুক্তি পেল সম্প্রতি। তারপর ঘৃণার আবহে মুখ খুললেন দক্ষিণী অভিনেত্রী। রাশমিকার দাবি, তিনি সব কথা শুনতে চান। তার বিরুদ্ধে মানুষের রাগের কারণ খতিয়ে দেখতে চান। তবে একটি শর্তে। ঠিকভাবে কথা বলতে হবে এবং অবশ্যই ভদ্র ভাষায়। কোনোরকম ঘৃণার উদ্‌যাপন চলবে না।

সম্প্রতি দক্ষিণের প্রযোজকদেরও রোষের শিকার হয়েছেন রাশমিকা। সবার অভিযোগ, তিনি ‘নাকউঁচু’, ‘অকৃতজ্ঞ’, সাফল্যের মুখ দেখার পর অতীতকে অস্বীকার করতে শুরু করেছেন। এ নিয়ে রাশমিকার মনোভাব জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, ‘আমার সব কিছু নিয়ে সমস্যা রয়েছে লোকের। যদি খুব বেশি শরীরচর্চা করি, আমাকে নাকি পুরুষের মতো লাগে। আর যদি শরীরচর্চা না করি, আমাকে মোটা বলা হয়। যদি সোজাসাপ্টা কথা বলি আমায় বেপরোয়া, বেইমান বলা হবে। আর যদি কথা না বলি, তাহলেও শুনতে হবে আমি নাকি ধরাকে সরা জ্ঞান করছি! যা দেখছি, আমার শ্বাস-প্রশ্বাস নিয়েও সমস্যা লোকের।’

এরপরই অভিনেত্রী বলে ওঠেন, ‘কী করলে সবাই খুশি হবেন? চলে যাব? নাকি থাকব? আপনারাই বলুন।’ সমস্যার মূলে যেতে চাইছেন রাশমিকা। স্পষ্ট করে শুনতে চান, তাকে নিয়ে লোকের সমস্যা আসলে কীসে? তার কথায়, ‘অকারণে খারাপ কথা বলবেন না। যেসব বাক্যবন্ধ ব্যবহার করা হচ্ছে আমার সম্পর্কে, সেগুলো আমাকে মানসিকভাবে বিপর্যস্ত করছে।’

উল্লেখ্য, শুক্রবার (২০ জানুয়ারি) নেটফ্লিক্সে মুক্তি পেয়েছে শান্তনু বাগচি পরিচালিত ‘মিশন মজনু’ সিনেমাটি। এতে নাসরিন নামক এক অন্ধ তরুণীর চরিত্রে অভিনয় করেন রাশমিকা। আগামীতে তাকে রণবীরের কাপুরের বিপরীতে ‘অ্যানিমেল’ ছবিতে দেখা যাবে। দক্ষিণের পাশাপাশি বলিউডেও এখন নিয়মিত ‘পুষ্পা’ খ্যাত এই অভিনেত্রী।

      

Bangladeshpost24.com

Previous articleফুটবল ম্যাচে সাদা কার্ড, নতুন নিয়ম যে দেশে
Next articleবরিশাল কে থামিয়ে জয়ে ফিরলো মাশরাফির সিলেট