অনলাইন ডেস্কঃ ভারতের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রক্রিয়া শেষ পর্যায়ে। আজ বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) স্থানীয় সময় বেলা ১১টায় ভোটগণনার মাধ্যমে ফলাফল প্রকাশ হবে।

এর আগে নতুন প্রেসিডেন্টকে বেছে নিতে গত সোমবার (১৮ জুলাই)  প্রতিবেশী প্রেসিডেন্ট পদে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়।

ভারতের পরবর্তী প্রেসিডেন্ট হওয়ার এই লড়াইয়ে রয়েছেন দেশটির বিরোধী দলগুলোর প্রার্থী যশবন্ত সিনহা এবং বিজেপি তথা এনডিএ প্রার্থী দ্রৌপদী মুর্মু।

এনডিটিভি ও আনন্দবাজারের প্রতিবেদন বলছে, মোটামুটি বিকেলের মধ্যেই ভারতের পরবর্তী প্রেসিডেন্টের নাম জানা যাবে। ভারতের ১৫তম প্রেসিডেন্ট কে হচ্ছেন তা নিয়ে ইতোমধ্যেই সরগরম দেশটি।

গত জুন মাসে ভারতে নতুন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রক্রিয়া শুরু হয়। গত ১৬ জুন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের তফসিল প্রকাশ করা হয়। এরপর গত সোমবার ভারতের পার্লামেন্ট ও সব রাজ্য বিধানসভায় নির্বাচনের ভোটগ্রহণ করা হয়। দেশের পরবর্তী প্রেসিডেন্টকে বেছে নিতে সেদিন ভারতের সাড়ে ৪ হাজারেরও বেশি সংসদ সদস্য ও বিধায়ক ভোট দেন।

পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী আজ বৃহস্পতিবার এই ভোটগণনা করা হবে। গণনার পরপরই ঘোষণা করা হবে নতুন প্রেসিডেন্ট হিসাবে কে নির্বাচিত হলেন; দ্রৌপদী মুর্মু নাকি যশবন্ত সিনহা। এরপর ২৫ জুলাই শপথ গ্রহণ করবেন নতুন প্রেসিডেন্ট। আগামী ৬ আগস্ট হবে উপরাষ্ট্রপতি নির্বাচন।

প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ভোট গণনার জন্য দেশটির পার্লামেন্টে বিশেষ প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। পার্লামেন্ট ভবনের ৬৩ নাম্বার কক্ষকে গণনা কেন্দ্র হিসেবে প্রস্তুত করা হয়েছে। এছাড়া ওই কক্ষ ও তার আশপাশের অংশকে সাইলেন্ট জোন হিসাবেও ঘোষণা করা হয়েছে।

১৮ জুলাই ভোটগ্রহণ শেষের পরই সব রাজ্য বিধানসভা থেকে ব্যালট বক্স কড়া নিরাপত্তায় পার্লামেন্টে নেওয়া হয়েছে।

সংবাদমাধ্যম বলছে, গত সোমবার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোট পড়েছে ৯৯ শতাংশ। নির্বাচন কমিশনের তথ্য অনুযায়ী, নির্বাচনে মোট ৪ হাজার ৭৯৬ জন ভোটারের মধ্যে ৯৯.১৮ শতাংশ ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন। এছাড়া ১০টি রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে ১০০ শতাংশ ভোট পড়েছে।

দ্রৌপদী মুর্মু ভারতের ক্ষমতাসীন দল ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) মনোনীত প্রার্থী। বিজেপি নেতৃত্বের হিসাব অনুযায়ী, দ্রৌপদী মোট ভোটের অন্তত ৬২ শতাংশ ভোট পেয়ে জয়লাভের মাধ্যমে ভারতের ১৫তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে নির্বাচিত হতে চলেছেন।

অন্যদিকে বিরোধী দলগুলোর মনোনীত প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী যশবন্ত সিনহা ভোটগ্রহণের আগে প্রায় প্রতিদিনই নির্বাচনের প্রচারে নিজের প্রচার চালিয়েছেন। পশ্চিমবঙ্গের ক্ষমতাসীন তৃণমূল কংগ্রেস জানিয়েছিল, যশবন্ত সিনহা যেন বিরোধীদের পুরো ভোটটিই পান তার ব্যবস্থা করা হয়েছিল।

উল্লেখ্য, ভারতে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার করা হয় না। সংসদ সদস্য, বিধায়কদের ব্যালটে ভোট দিতে হয়। জানাতে হয় প্রথম এবং দ্বিতীয় পছন্দও। বেগুনি রঙের কলম দিয়ে ভোট দিতে হয় সংসদ সদস্য, বিধায়কদের। তবে সংসদ সদস্যদের জন্য থাকে সবুজ রঙের ব্যালট পেপার, বিধায়কদের জন্য গোলাপি রঙের।

bangladeshpost24.com

Previous articleলাখ টাকার আইসক্রিম
Next articleসেপ্টেম্বরে আমিরাতে যাবে নারী দল