অনলাইন ডেস্কঃ আওয়ামী লীগকে খুশি করার জন্য নির্বাচন কমিশন (ইসি) ১৫০ আসনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির (জাপা) মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু।

শনিবার দুপুরে রাজশাহী জেলা জাতীয় পার্টির বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, ১৫০টি আসনে ইভিএম দেয়া হয়েছে উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে। কারণ সরকার গঠন করতে ১৫১ টি আসন লাগে। ইভিএম পাবলিক বুঝে না। এটি একটি যন্ত্র। যে ব্যক্তি এ যন্ত্র (ইভিএম) পরিচালনা করবে এটি তার কথাই শুনবে। তাই অধিকাংশ রাজনৈতিক দল ইভিএমের বিপক্ষে। এ সময় তিনি ইভিএমে ভোট গ্রহণের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের আহ্বান জানিয়ে বলেন, ভারত ও পাকিস্তানসহ অনেক দেশ ইভিএম বন্ধ করে দিয়েছে।

জাপা মহাসচিব বলেন, বিএনপি চারবার বাংলাদেশকে দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন করেছে। আর আওয়ামী লীগ দুর্নীতি করে না। সরাসরি লুটপাট করে। ২০১৬ সাল থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত তারা (আওয়ামী লীগ) এক লাখ ২৪ হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার করেছে। কুইক রেন্টাল বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলো না চললেও ক্যাপাসিটি চার্জের নামে বসিয়ে রেখে ৮৬ হাজার কোটি টাকা দিয়ে দেয়া হয়েছে।

জ্বালানি তেলের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির প্রসঙ্গ টেনে জাপা মহাসচিব বলেন, যে সরকার জ্বালানি তেলের মূল্য একবারে শতকরা ৫১ ভাগ বৃদ্ধি করে, সে সরকার কখনো জনগণের সরকার হতে পারেনা।

মুজিবুল হক চুন্নু বলেন, আওয়ামী লীগ ও বিএনপি নীতিগতভাবে দুই মেরুতে। ক্ষমতায় আসতে তারা মারামারি করবে। তাদের মধ্যে যে দলই ক্ষমতায় যাবে, দেশে অরাজকতার সৃষ্টি হবে। জনগণ এটা বুঝে গেছে। জাতীয় পার্টির মত শান্তি প্রিয় দল ক্ষমতায় আসলে আওয়ামী লীগ-বিএনপিসহ জনগণ বাঁচবে।

তিনি আরো বলেন, জাপা চেয়ারম্যান এরশাদকে মামলার ভয় দেখিয়ে আওয়ামী লীগ-বিএনপি দু’দলই জোটে ভিড়িয়ে সুবিধা নিয়েছে। কিন্তু বর্তমান চেয়ারম্যান জি এম কাদের এবং আমার নামে মামলা নেই। এখন আমাদের সিদ্ধান্ত আমরাই নিব। এ সময় তিনি আগামী নির্বাচনে ৩০০ আসনে প্রার্থী দেয়ার ঘোষণা দিয়ে বলেন, দ্বিধা-দ্বন্দ্ব ভুলে জাতীয় পার্টিকে সুসংগঠিত করতে হবে, মানুষের কাছে যেতে হবে।

রাজশাহী জেলা জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক রাহাত হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, আলমগীর শিকদার লোটন, জহিরুল ইসলাম জহির, মোস্তফা আল মাহমুদ, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা নুরুল ইসলাম তালুকদার, জাপার ভাইস চেয়ারম্যান ও রাজশাহী মহানগর আহ্বায়ক সাইফুল ইসলাম স্বপন, সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব গোলাম মো: রাজু, বেলাল হোসেন প্রমুখ। এছাড়া বর্ধিত সভায় রাজশাহী জেলা জাতীয় পার্টির বিভিন্ন উপজেলা ও পৌরসভা পর্যায়ের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

 

 

Bangladeshpost24.com

Previous articleইভ্যালির পরিচালনা বোর্ড পদত্যাগ করেছে
Next articleসাফ শিরোপাজয়ী বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলকে সংবর্ধনা দেবে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়